আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রহ্মপুত্র-পদ্মার পানি প্রত্যাহারের ভারতীয় উদ্যোগে গভীর উদ্বেগ ও প্রতিবাদ-বাসদ

bidrohy-1448885733-6686019_xlargeবাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে ভারত কর্তৃক আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পের মাধ্যমে ব্রহ্মপুত্র-পদ্মাসহ বিভিন্ন নদীর পানি প্রত্যাহারের উদ্যোগে গভীর উদ্বেগ ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
বিবৃতিতে খালেকুজ্জামান বলেন, এমনিতেই বাংলাদেশের উপর দিয়ে প্রবাহিত ৫৪টি নদী যা ভারতের ভিতর দিয়ে এসেছে তার অধিকাংশের উজানে বাঁধ দিয়ে আন্তর্জাতিক রীতি-নীতি লংঘন করে স্বাভাবিক পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। ফারাক্কা বাঁধের প্রভাবে ইতিমধ্যেই রাজশাহীর বরেন্দ্র অঞ্চলসহ বিস্তীর্ণ এলাকা মরুকরণের পথে। দক্ষিণাঞ্চলে লবনাক্ততা বেড়েছে। তিস্তার উজানে বাঁধ দেয়ায় রংপুর অঞ্চলেও পানি সংকটে চাষাবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এমতাবস্থায় আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্প চালু করে ব্রহ্মপুত্র-তিস্তা-পদ্মার পানি প্রত্যাহার করে বাংলাদেশকে পুরো মরুভূমির দিকে ঠেলে দিচ্ছে ভারত।
বিবৃতিতে তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বার্থ বিরোধী, পরিবেশ বিরোধী ভারতের এহেন সর্বনাশা পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ভারতের অকৃত্রিম বন্ধু দাবিদার আওয়ামী লীগ সরকার কোন প্রতিবাদ করছেনা। উপরন্তু তাদের কৃপায় ক্ষমতার মসনদ দখলে রাখার জন্য তিস্তার পানি না পেলেও বাংলাদেশের বন্দর ব্যবহার, ট্রানজিটসহ বিভিন্ন সুযোগ ভারতকে দিয়ে চলছে। বিরোধী বিএনপিও ভারতকে তুষ্ট রেখে ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। দেশ ও জনগণের স্বার্থে তাদের কোন পদক্ষেপ নেই।
বিবৃতিতে খালেকুজ্জামান বাংলাদেশকে মরুভূমি বানানোর আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্প বাতিলের জন্য ভারত সরকারকে বাধ্য করতে ভারতীয় জনগণ যাতে চাপ সৃষ্টি করে তার আহ্বান জানান এবং বাংলাদেশ সরকারকে কার্যকর কূটনৈতিক উদ্যোগ গ্রহণ, প্রয়োজনে জাতিসংঘে উত্থাপনের দাবি জানান।
বিবৃতিতে তিনি সাম্রাজ্যবাদী ভারত সরকারের পানি আগ্রাসন বন্ধের দাবি ও বাংলাদেশের নতজানু শাসক শ্রেণির বিরুদ্ধে দেশপ্রেমিক জনগণকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।