গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সরকারি চক্রান্ত-কঠোর আন্দোলনে প্রতিহত করা হবে -বাম গণতান্ত্রিক জোট

সরকারের ভুলনীতি-দুর্নীতি-লুটপাটের দায় জনগণ নেবে না
গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সরকারি চক্রান্ত-কঠোর আন্দোলনে প্রতিহত করা হবে
_DSC0068 copyঅযৌক্তিকভাবে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির আয়োজন সম্পন্ন করে সরকার জনগণের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, ব্যবসায়ীদের করছে পুরুষ্কৃত। জনগণ এই অন্যায় কোনভাবে মেনে নিবে না। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ এ কথা বলেন।
গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারার বিরুদ্ধে বাম গণতান্ত্রিক জোট আহূত দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ ২৭ মার্চ ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সমানে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। জোটের সমন্বয়ক বাসদ নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কমরেড সাইফুল হক, রুহিন হোসেন প্রিন্স, মানস নন্দী, নজরুল ইসলাম, মনির উদ্দিন পাপ্পু, হামিদুল হক ও লিয়াকত আলী। উপস্থিত ছিলেন কমরেড শাহ আলম, শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী, রাজেকুজ্জামান রতন, বাচ্চু ভূইয়া প্রমুখ। সমাবেশের পর একটি বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পল্টন মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।
_DSC0065 copyনেতৃবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বিইআরসি’র আইন ভঙ্গ করে গণশুনানি করেছে। তার আগেই জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী গ্যাসের দাম বাড়ানোর যে ঘোষণা দিয়েছে তা বে-আইনি। এক বছরে একাধিকবার দাম বাড়ানো ও বিতরণকারী কোম্পানিগুলো মুনাফায় থাকলে গণশুনানির প্রস্তাব গ্রহণ করা বে-আইনি। তার পরও গণশুনানির আয়োজন করে সরকার-বিইআরসি একযোগে জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে এলএনজি ব্যবসায়ীদের মুনাফার স্বার্থে দাম বাড়ানোর পাঁয়তারা করছে।
_DSC0073 copyনেতৃবৃন্দ বলেন, বাসাবাড়ীতে জনগণ কম গ্যাস ব্যবহার বেশি দাম দিচ্ছে। দেশের জনগণের দাবি উপেক্ষা করে বিদেশি কোম্পানিকে স্থলভাগের গ্যাস ক্ষেত্র ইজারা দিলেও দুই যুগ পেরিয়ে গেলেও তারা অনুসন্ধান-উত্তোলন করছে না। ২০১৩ সালে সমুদ্র জয় করার পরও আজ পর্যন্ত সমুদ্রের গ্যাস উত্তোলনে কার্যকর উদ্যোগ নাই অথচ পাশ্ববর্তী দেশ বার্মা ও ভারত তাদের অংশে গ্যাস তুলছে। আবার অনুসন্ধান না করেই গ্যাসের সংকটের কথা বলে বিদেশ থেকে এলএনজি আমদানি করছে বেসরকারিভাবে। সেখানেও দুর্নীতি চলছে, ভারত ৬ ডলারে গ্যাস কিনলেও বাংলাদেশ কিনছে ১০ ডলারে আর এই বাড়তি মূল্য জনগণের পকেট থেকে আদায় করছে এবং দফায় দফায় দাম বাড়াচ্ছে।
নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের ভুলনীতি, দুর্নীতি, লুটপাটের দায় জনগণ কেন নেবে? নেতৃবৃন্দ মূল্যবৃদ্ধির পাঁয়তারা বন্ধের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে বাধ্য করা হবে।