জনগণের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে পুলিশি হামলা আইন করে নিষিদ্ধ করার দাবি

শান্তিপূর্ণ হরতাল কর্মসূচিতে হামলা-গ্রেফতার এর নিন্দা
বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান আজ ২৫ এপ্রিল ২০১৬ সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে তনুসহ সারা দেশে অব্যাহত খুন-ধর্ষণের বিচারের দাবিতে প্রগতিশীল ছাত্র জোট ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী ছাত্র ঐক্য আহুত অর্ধদিবস হরতালে মিছিল থেকে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহসভাপতি, মাসুক হেলাল অনিক, সাধারণ সম্পাদক সুস্মিতা মরিয়ম, দপ্তর সম্পাদক আব্দুল খালেক উজ্জ্বল, জয়পুরহাট জেলা সভাপতি উৎপল দেবনাথ, সুইট সরকার, মামুন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আবিদ সরকার সোহাগ, জয়পুরহাট জেলা ছাত্র ফ্রন্ট সভাপতি তাজিউলসহ সারা দেশে ৩০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার; বরিশালে পুলিশ মিছিলে হামলা করে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ফারহানা তিশাসহ ২০ জন স্কুল ছাত্র আহত এবং বরিশালে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম জেলা সংগঠক জহুরা রেখা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির আর্ন্তজাতিক সম্পাদক ডা. মনীষা চক্রবর্তী, ছাত্রনেতা সন্তু মিত্র, নিলীমা জাহান, মামুন, রংপুরে রোকুনজ্জামান রোকনসহ সারাদেশে আহত প্রায় ৫০ জনের অধিক নেতাকর্মী এবং বগুড়া, নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর, কুষ্টিয়াসহ সারা দেশে বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ হরতালে পুলিশ বাধা প্রদান ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং অবিলম্বে গ্রেফতারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি এবং হামলাকারী পুলিশ সদস্য ও ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের বিচারের দাবি জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, সারা দেশে নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, হত্যা, খুন, গুম দেশে এক চরম আতঙ্কজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। সরকার কোন ঘটনারই বিচার করতে পারছে না বরং যারা এই হত্যা-খুনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে তাদেরকেই নানা ভাবে হেনস্তা করছে। এর মধ্য দিয়ে সরকারের গণবিরোধী চরিত্রই ক্রমাগত উন্মোচিত হচ্ছে।

বিবৃতিতে তিনি ছাত্র-শিক্ষক, শ্রমিক-কৃষক, পেশাজীবীসহ জনগণের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে পুলিশী হামলা-হস্তক্ষেপ আইন করে নিষিদ্ধ করার দাবি জানান।