টাঙ্গাইলে পুত্রের সামনে মায়ের শ্লীলতাহানির ঘটনা ও মানুষ হত্যার বিচারের দাবিতে সিপিবি-বাসদ এর বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ

দেশ আজ পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ আহূত টাঙ্গাইলে পুত্রের সামনে মাকে বিবস্ত্র করা ও এই ঘটনার প্রতিবাদকারী ৪জন সাধারণ গ্রামবাসীকে পুলিশ গুলি করে হত্যার বিচারের দাবিতে আজ ২১ সেপ্টেম্বর বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও অনুষ্ঠিত হয়েছে।
210915 Comrade Khalequzzamanসমাবেশের সভাপতি ও বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বলেন, দেশে আজ মানবিক মর্যাদার বিপরীতে অবিচার চলছে। সরকার আজ স্বৈরাচারী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। তিনি বলেন, টাঙ্গাইলে এত বড় অন্যায়ের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ রুখে দাঁড়াবে এটাই স্বাভাবিক। পুলিশ এসব প্রতিবাদকারীদের সাধুবাদ না জানিয়ে গুলি করে হত্যা করেছে। তিনি দোষী পুুলিশদের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে বলেন ক্লোজড কোন শাস্তির মধ্যে পড়ে না। পুলিশ বাহিনী আজ রাষ্ট্রের কর্মচারীর বদলে সরকার বা তার দলের নেতাকর্মীদের কর্মচারীতে পরিণত হয়েছে। খালেকুজ্জামান আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশকে বিকৃত করে রাজাকারদের রাষ্ট্রে পরিণত করা হচ্ছে।
210915 Comrade Sayed Abu Jafar Ahmedসিপিবি সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমদ তার বক্তৃতায় বলেন, দেশের পুলিশ আজ মনে করে তারাই সরকারকে টিকিয়ে রেখেছে। পুলিশ প্রধান প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের গুলি করার নির্দেশ দেন। পুলিশের ঘুষ-দুর্নীতি-চাঁদাবাজি-হত্যাকা- ও তাদের বক্তব্য দেখে মনে হচ্ছে দেশ আজ পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, আজও মেডিকেলের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের প্রতিবাদে ছাত্ররা প্রতিবাদ করলে তাদের লাঠিচার্জ করা হয়েছে, গ্রেফতার করা হয়েছে। টাঙ্গাইলে সাধারণ মানুষ হত্যাকা-ে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা না করে উল্টো প্রতিবাদকারী বীর জনতার নামে মামলা করার নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন দেশে আজ ফ্যাসিবাদের পদধ্বনি শোনা যাচ্ছে। এই অবস্থায় গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে দেশের সকল গণতান্ত্রিক শক্তিসমূহকে এক হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

????????????????????????????????????

????????????????????????????????????

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাসদ নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, আব্দুর রাজ্জাক এবং সিপিবি নেতা আব্দুল্লা আল কাফি রতন। সমাবেশ পরিচালনা করেন সিপিবি ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল।
সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, টাঙ্গাইলের ছেলের সামনে মাকে বিবস্ত্র করা, ভাইয়ের সামনে বোনকে, পিতার সামনে কন্যাকে কিংবা স্ত্রীকে ধর্ষণ ইত্যাদি ঘটনা পূর্ণিমার কথাই স্মরণ করিয়ে দেয়। নেতৃবৃন্দ এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। অতীতেও নির্যাতনের সাথে জড়িত পুলিশ সদস্যদের ক্লোজড এর নামে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, এই সরকারকেই দোষী পুলিশের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।
সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিবি প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ জহির চন্দন, আহসান হাবিব লাবলু, সদস্য রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদ নেতা জুলফিকার আলী, খালেকুজ্জামান লিপন।