নারী নির্যাতন বন্ধ কর, নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠা কর-৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ডাক

নারী নির্যাতন বন্ধ কর, নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠা কর
পুঁজিবাদ-সাম্রাজ‌্যবাদ-মৌলবাদ রুখে দাঁড়ান; নারীমুক্তির আন্দোলনকে বেগবান করুন

dscf1082-copyসমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম এর ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের ঢাকা নগর শাখার উদ্যোগে আজ ৬ জানুয়ারি ২০১৭ শুক্রবার সকাল ১১.৩০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম এর ঢাকা নগর শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রকৌশলী শম্পা বসু এবং পরিচালনা করেন রুখসানা আফরোজ আশা। সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ঢাকা নগর শাখার আহ্বায়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম এর কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য সামসুন্নাহার জ্যোৎস্না, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক শিপ্রা মন্ডল, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ইমরান হাবীব রুমন ও ঢাকা নগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মুক্তা বাড়ৈ।
dscf1130copyসমাবেশে বক্তারা বলেন, সমাজে নারীর মানবিক অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ১৯৮৪ সালের ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ এর নারী সংগঠন হিসেবে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম এর আত্মপ্রকাশ ঘটে। দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারী। সরকারি হিসেব মতে, গৃহস্থালি কর্মকাণ্ড ছাড়া বর্তমানে দেশে ১ কোটি ৬৮ লাখ নারী কৃষি, শিল্প ও সেবা খাতের কর্মরত রয়েছেন। আর মজুরিবিহীন গৃহস্থালি কাজের পরিমান বছরে প্রায় ১০ লাখ ৩৭ হাজার কোটি টাকার সমান। জিডিপিতে এই আর্থিক মূল্য যোগ হলে নারীর হিস্যা দাঁড়াবে ৪৮ শতাংশ। দেশের অর্থনীতিতে যারা এতো অবদান রাখছেন তাদের শ্রমের দাম সস্তা আর কাজের স্বীকৃতি প্রায় নেই বললেই চলে।
বক্তাগণ আরও বলেন, আমাদের দেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের ঘোষণা ছিল সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার। স্বাধীনতার ৪৫ বছর পরও আমাদের দেশে ধর্মীয় পারিবারিক আইন বলবৎ। ফলে নারীরা সম্পত্তির উত্তরাধিকারে সমান অধিকার পান না, বিবাহ-বিবাহবিচ্ছেদ ও পারিবারিক ক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার হন। সমকাজে সমমজুরী আইনে থাকলেও বাস্তবে নেই। মাতৃত্বকালীন ছুটি বেসরকারী কারখানায় সবেতন ৪ মাস হলেও গর্ভবতী নারীর ভাগ্যে জোটে ছাঁটাই।
আর নির্যাতন তো লেগেই আছে। শিশু থেকে বৃদ্ধা কেউ রেহাই পাচ্ছে না নির্যাতনের হাত থেকে। তনু হত্যার সাড়ে ৯ মাস হয়ে গেল, বিচার কি হবে? একের পর এক নির্যাতক-ধর্ষক-হত্যাকারী ক্ষমতা আর টাকার দাপটে পার পেয়ে যাচ্ছে। সরকার ও প্রশাসন নারীদের নিরাপত্তা দিতে পারেন না! সেজন্য সরকার নতুন আইন করতে যাচ্ছে যাতে বাবা-মার সম্মতি বা আদালতের নির্দেশে ১৮ বছরের নিচে বাল্যবিবাহও বৈধ হয়ে যাবে!! বাল্য বিয়ের কারণ দারিদ্র-নিরাপত্তাহীনতা-অশিক্ষা-বেকারত্ব-যৌতুক-কুসংস্কার কোন কিছু দূর করার যথাযথ উদ্যোগ না নিয়ে নারীদেরকে শতবছর আগের বেগম রোকেয়ার সময় থেকেও পিছিয়ে দেওয়ার চক্রান্ত চলছে।
dscf1029-copyসমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই নারীর প্রতি সকল প্রকার বৈষম্য ও নির্যাতন-নিপীড়নের বিরুদ্ধে এবং নারীর মানবিক অধিকার আদায় ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করছে। সমাবেশ থেকে সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গিকার ব্যক্ত করা হয়; নারীমুক্তির এই লড়াই-এ নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলের সহযোগিতা ও অংশগ্রহণের আহ্বান জানানো হয় ।