যে বাজেট পাশ করা হলো তাতে বাস্তবে পর্বতের মুষিক প্রসব ছাড়া আর কিছুই নয়-কমরেড খালেকুজ্জামান

দীর্ঘ প্রায় ১ মাস মকফাইট আলোচনার পর সংসদে যে বাজেট পাশ করা হলো তাতে
বাস্তবে পর্বতের মুষিক প্রসব ছাড়া আর কিছুই নয়-কমরেড খালেকুজ্জামান

haturi-kastey-editedবাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে – আজ ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত জাতীয় সংসদে ‘দীর্ঘ এক মাস তথাকথিত আলোচনার পর যে বাজেট পাশ করা হয়েছে তাকে জনগণের সাথে শাসকদের মকারী বলে উল্লেখ করে বলেছেন, এটা পর্বতের মুষিক প্রসব ছাড়া আর কিছুই নয়।’
বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবের পর ভ্যাট আইন দুই বছর কার্যকর না করা, ব্যাংকের আবগারী শুল্ক না বাড়ানোর মাধ্যমে যে বাজেট পাশ হয়েছে তাতে সরকারের উদ্দেশ্য পুরো সফল হয়েছে।
তিনি বলেন, বাজেট প্রস্তাবে ইচ্ছা করেই ভ্যাট বাড়ানো, আবগারী শুল্কের প্রস্তাব করা হয়েছিল যাতে জনগণের দৃষ্টি এর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে। আর সরকারি-বেসরকারি সাংসদরা এটা নিয়েই আলোচনায়-সমালোচনায় সংসদ গরম করে রাখে যাতে অন্যদিকে কৃষি-শিক্ষা-চিকিৎসাসহ জনগণের জন্য বরাদ্দ যে আনুপাতিকহারে কমিয়ে দেয়া হয়েছে সেদিকে যেন জনগণের দৃষ্টি না যায়।
খালেকুজ্জামান বলেন, এটা করার জন্য অর্থমন্ত্রীকে বলীর পাঠা বানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে ত্রাণ কর্তা হিসেবে দেখিয়ে সরকার এক ঢিলে দুই পাখি মারার পরিকল্পনা করেছে।
তিনি বলেন, পাশ করা বাজেটে ব্যাংক লুটের টাকা জনগণের পকেট থেকে নিয়ে ভরার ব্যবস্থা করা হয়েছে, খেলাপী ঋণ অবলোপনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পোশাক শিল্প মালিকদের জন্য কর্পোরেট ট্যাক্স কমানো হয়েছে। সামরিক-বেসামরিক আমলাতন্ত্রের জন্য বরাদ্দ বেড়েছে। অথচ বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নেই।
বিবৃতিতে তিনি বলেন, ভোটারবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা দখলকারী সরকারের যেমন রাজনৈতিভাবে জনগণের কাছে জবাবদিহিতা নাই তেমনি বাজেট প্রণয়নেও কোন জবাবদিহিতা নাই।
এ বাজেট বাস্তবে ধনিকে আরো ধনি, গরীবকে আরো গরীব করবে। কথার ফুলঝুড়ির আড়ালে উন্নয়নের নামে লুণ্ঠনকেই বৈধতা দেবে। তিনি এই সরকারের ধনিক তোষণের বাজেট ও গণবিরোধী তৎপরতার বিরুদ্ধে বাম-প্রগতিশীল-গণতান্ত্রিক শক্তির ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।