ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়কে কেন্দ্র করে সরকারের পক্ষ থেকে যে পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে তা অনভিপ্রেত, অনাকাঙ্খিত ও অশুভ ইঙ্গিতবাহী-খালেকুজ্জামান

Haturi-kastey edited copyবাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান সংবাদপত্রে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেন, ‘ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়কে কেন্দ্র করে সরকারের পক্ষ থেকে যে পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে তা অনভিপ্রেত, অনাকাঙ্খিত ও অশুভ ইঙ্গিতবাহী। রায় ভালো করে না পড়ে রায় এর উপর মনগড়া মন্তব্য করা, মেঠো বক্তৃতায় আইন ও সংবিধনের নিষ্পত্তি করা, যুক্তির চেয়ে আবেগকে ফেনিয়ে তোলা, ক্ষমতাকেন্দ্রীক দ্বি-দলীয় পাল্টাপাল্টির রাজনীতির মাঠ সরগরম করা, আত্মোপলব্দির বদলে আত্মম্ভরিতা প্রদর্শন করা, মহাভুলের নিক্তিতে ভুল মাপার চেষ্টা করা, উত্তেজনা আর উন্মাদনার বাষ্প ছড়িয়ে দৃষ্টিকে ঝাপসা করে তোলা ইত্যাদি সবকিছু মিলে যা করা হচ্ছে তা দায়িত্বশীলতার পরিচয় বহন করেনা। রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বের অভিশাপ থেকে বেরোবার পথ রচনা করতে পারে না। রায় শুধু নয় যে কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে যুক্তিসম্মত তর্ক-বিতর্ক, আলাপ-আলোচনা যত বেশি হয়, ততো জনগণের ও সর্বমহলের গণতান্ত্রিক চেতনা ও শক্তি বিকশিত হয়, অন্যথায় তা নেতিবাচক প্রবণতাসমূহকে উস্কে দেয় এবং বাড়িয়ে তোলে। আমরা আজ যখন এক ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছি, বন্যায় চরম ক্ষতিগ্রস্ত সড়কের চেয়েও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানসহ প্রতিষ্ঠানসমূহ যখন ভাঙ্গাচোরা চেহারায় ফুটে উঠেছে, পণ্যের মাপে পরিমাপে যখন রাজনীতি বাণিজ্য ও দুবৃত্তায়নের পথ ধরে বহুদূর এগিয়ে গেছে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ঝুলন্ত ব্যানারে লেখার ও অসার বচনের বাইরে বাংলাদেশের জমিনে যার অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হয়ে পড়েছে- এককথায় শাসন সংকট, জণদুর্ভোগ, রাজনৈতিক-সাংস্কৃতিক সংকট যখন চরমে উঠেছে তখন অসহিষ্ণুতা, অস্থিরতা কোন মতেই কাম্য নয়। গাছের ডালের প্রান্তে বসে ডাল এর গোড়া কাটা সমীচীন নয়। আমরা সকল বাম গণতান্ত্রিক প্রগতিশীল দল, শক্তি ও ব্যক্তিবর্গকে সুস্থ গণতান্ত্রিক চেতনা ও শক্তি বিকাশের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাই।’ একই সাথে দ্বি-দলীয় পাল্টাপাল্টির বিপরীতে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত চেতনায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিকল্প গড়ে তোলার জন্যও আহ্বান জানাই।