সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্টের মানববন্ধন-সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ক্ষতিগ্রস্ত হাওড় অঞ্চলকে দূর্গত এলাকা ঘোষণা, কৃষকদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ও সুদমুক্ত কৃষি ঋণ প্রদান এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা-ঠিকাদারদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি
SPF-080417-2সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্টের উদ্যোগে আজ ৮ এপ্রিল ২০১৭ সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কৃষকনেতা কমরেড বজলুর রশীদ ফিরোজ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন দপ্তর সম্পাদক নিখিল দাস, জুলফিকার আলী, আহসান হাবিব বুলবুল ও আবু নাঈম খান বিপ্লব।
মানববন্ধন সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, অসময়ে ৪/৫ দিনের বৃষ্টি ও ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে বাঁধ ভেঙ্গে সুনামগঞ্জ, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনার প্রায় ২ লক্ষাধিক হেক্টর জমির বোরো ধান তলিয়ে গিয়ে কৃষকের মহা সর্বনাশ হয়েছে। স্থানীয় কৃষক জনসাধারণের বক্তব্য অনুযায়ী প্রতি বছর হাওড় এলাকার বাঁধ সংস্কার, মেরামত, পুননির্মাণের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করতে নির্দেশ দেয়া হয়। কিন্তু এক শ্রেণির অসৎ দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তা, প্রকৌশলী ও ঠিকাদারদের অবহেলা, গাফিলতি ও অনিয়মের জন্য বাঁধ মেরামত কাজ মার্চ মাসেও সম্পন্ন হয়নি। ফলে উজান থেকে নেমে আসা ঢলে এবং বৃষ্টির পানিতে বাঁধ ভেঙ্গে হাওড়ের ফসল ডুবে গেছে। এতে লক্ষ লক্ষ কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পথে বসেছে। অনেকের হাড়িতে ভাত রান্নারও জোগাড় নাই। এমতাবস্থায় হাওড়বাসীর পক্ষ থেকে দাবি উঠেছে ক্ষতিগ্রস্ত হাওড় অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করার।
নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হাওড়ের জনগণের দাবি মেনে নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হাওড় অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা এবং উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবি জানান। একই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পুনর্বাসনে বিনামূলে কৃষি উপকরণ সরবরাহসহ সুদমুক্ত কৃষি ঋণ প্রদানের জোর দাবি জানান।
সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বাঁধ মেরামতে গাফিলতি, অবহেলা ও দুর্নীতি-অনিয়মের জন্য দায়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা, প্রকৌশলী ও ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব থেকে কদম ফোয়ারা, তোপখানা রোড, পুরানা পল্টন হয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।