সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের তিন দিনব্যাপী কর্মী সদস্য সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করলেন অধ্যাপক ড. অজয় রায়

3121215_ssf 7th workers conference-1৩১ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ৭ম কেন্দ্রীয় কর্মী সদস্য সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন অধ্যাপক ড. অজয় রায়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি জনার্দন দত্ত নান্টুর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাবিব রুমনের সঞ্চালনায় এই উদ্বোধনী সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাসদের কেন্দ্রীয় সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আল কাদেরী জয়, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক কিবরিয়া হোসেন, ঢাকা নগরের সভাপতি রুখসানা আফরোজ আশা, রাশিব রহমান, মুক্তা বাড়ৈ প্রমুখ।
অধ্যাপক অজয় রায় বলেন, শিক্ষার আন্দোলনসহ গণতান্ত্রিক সকল আন্দোলনে অতীতের মত সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ভবিষ্যতেও সক্রিয় ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা করি। আন্দোলন সংগ্রামের পাশাপাশি জ্ঞানে বিজ্ঞানে নিজেদের প্রস্তুত করার লক্ষ্যে তিন দিনব্যাপী এই কর্মী সদস্য সম্মেলনের সাফল্য প্রত্যাশা করি।
3121215_ssf 7th workers conferenceজনার্দন দত্ত নান্টু বলেন, দেশে এখন চলছে এক ভয়ঙ্কর রাজনৈতিক সংকট। সংসদীয় গণতন্ত্রের (!) নামে একদলীয় শাসন কায়েম করা হয়েছে। আইসিটি ৫৭ ধারা দিয়ে প্রতিবাদের কণ্ঠ স্তব্ধ করা হচ্ছে, চলছে গুম-খুন-ক্রসফায়ার, লেখক-প্রকাশকসহ মুক্ত চিন্তার মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে, মন্দির-মসজিদ-গীর্জা, ধর্মীয় ভিন্নমতাবম্বীদের উপর মৌলবাদী হামলা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিচারব্যবস্থার চিত্র মানুষকে চূড়ান্তভাবে হতাশ করছে, দেশের অভ্যন্তরে সা¤্রাজ্যবাদী শক্তির হস্তক্ষেপ বাড়ছে। প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক সম্পদ দেদার দখল চলছে। উন্নয়নের নামে জনগণের ট্যাক্স-ভ্যাটের টাকা হরিলুট করা হচ্ছে। শিক্ষাসহ জনগণের সকল অধিকার খর্ব করে লুটপাটের মাধ্যমে অল্প কিছু মানুষের ধনী হওয়ার এই পুঁজিবাদী ব্যবস্থা ভাঙতে হলে আজ ছাত্র-তরুন-যুব সমাজকে জাগতে হবে। এর জন্য আদর্শবাদী ছাত্র আন্দোলনের ধারাকে শক্তিশালী করতে হবে। তাই আসুন, ছাত্র ফ্রন্টের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এদেশের সকল মানুষের শিক্ষার গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামকে সফল করি।
আজ থেকে তিন দিনব্যাপী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মী সদস্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।