বাসদ নগর কমিটির প্রতিবাদ সমাবেশ- লকডাউনে শ্রমজীবীদের জন্য রেশন চালুসহ সর্বজনীন চিকিৎসা নিশ্চিত করার দাবি

  •  
  •  
  •  

বাসদ নগর কমিটির প্রতিবাদ সমাবেশ

লকডাউনে শ্রমজীবীদের জন্য রেশন চালু কর, টিসিবি’র পণ্যের মূল্য কমাও গণপরিবহণের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার কর; বিআরটিসির গণপরিবহণের সংখ্যা বাড়াও, বিনামূল্যে সবাইকে টিকা দাও, টেস্ট এবং সর্বজনীন চিকিৎসা নিশ্চিত কর

SPB City Unit-040321-7বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ ঢাকা নগর শাখার উদ্যোগে আজ ৪ এপ্রিল দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি রোধ করা; লক ডাউনে শ্রমজীবী মানুষের জন্য রেশন ব্যবস্থা চালু করা; টিসিবি’র পণ্যের মূল্য কমানো; গণপরিবহণে ৬০% ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা; বিআরটিসির গণপরিবহণের সংখ্যা বাড়ানো; দেশের সকল নাগরিকদের বিনামূল্যে টিকা ও করোনা টেস্ট নিশ্চিত করা এবং সর্বজনীন চিকিৎসনা-স্বাস্থ্য সেবা ও সকল হাসপাতালে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত করার দাবিতে বিকেল ৪.৩০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দলের ঢাকা মহানগর শাখার সদস্য সচিব কমরেড জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক কমরেড আহসান হাবিব বুলবুল, বাসদ নগর শাখার নেতা খালেকুজ্জামান লিপন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি আল কাদেরী জয়, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সংগঠক রুখসানা আফরোজ আশা ও “বাংলাদেশ ট্যুরিজম এন্ড হোটেলস ওয়ার্কাস-এমপ্লয়িজ ফেডারেশন” এর আহ্বায়ক মোহা: রাশেদুর রহমান।
SPB City Unit-040321-5সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার কোন পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণ না করে ৫ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করে। আশঙ্কা করা যায় করোনা নিয়ন্ত্রণে না এলে এ সময় আরও বাড়নো হতে পারে। লকডাউনের ফলে, দেশের কোটি কোটি শ্রমজীবী গরিব মানুষÑযারা দিন এনে দিন খায় তাদের আয়রোজগার বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে তারা পরিবার-পরিজন নিয়ে চরম আর্থিক সংকটে পড়বে।
SPB City Unit-040321-4নেতৃবৃন্দ বলেন, টেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাব অনুযায়ী গত এক বছরে মোটা চালের দাম বেড়েছে ৩৭ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং পাইজাম চালের দাম বেড়েছে ২২ শতাংশ। সরকারের ‘দ্রব্যমূল্য পর্যালোচনা সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি’ এখন প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে ১৩৯ টাকা। দেশব্যাপী চলমান সংকটকালীন সময়ে মূল্য সমন্বয়ের নামে দাম বাড়ানোর সরকারের সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক ও অগণতান্ত্রিক। লকডাউন ঘোষণার পরপরই বাজারে প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে গেছে। যা নি¤œ আয়ের মানুষের ঘাড়ে মড়ার ওপর খাড়ার ঘা হিসেবে পড়ছে। সরকার ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণ না করে ভোক্তাদের পকেট কাটার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে। সামনে রোজাকে কেন্দ্র করে জিনিসপত্রের দাম আরও বাড়বে। নেতৃবৃন্দ টিসিবি’র মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহার ও বাজারের ওপর যথাযথ নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করার পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান।
SPB City Unit-040321-3নেতৃবৃন্দ বলেন, গণপরিবহণে ৬০% ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক। তাই বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করতে হবে। বিআরটিসির গণপরিবহণের সংখ্যা বাড়াতে হবে। দেশের সকল নাগরিকদের বিনামূল্যে টিকা ও করোনা টেস্ট নিশ্চিত করা এবং সর্বজনীন চিকিৎসা-স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সকল হাসপাতালে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ করার দাবি জানান।
SPB City Unit-040321-2নেতৃবৃন্দ বলেন, এমনিতেই করোনাকালে গত এক বছরে অনেকে কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েছে, তাদের আয় কমেছে। যা কিছু সামান্য সঞ্চয় ছিল তাও ভেঙে খরচ চালিয়ে এখন কপর্দকশূন্য। দারিদ্র মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ৪২% উপনীত হয়েছে। বাস্তবে এ সংখ্যা আরও অনেক বেশি এবং দিনে দিনে তা ক্রমাগত বাড়ছে। তাই গ্রাম-শহরের হতদরিদ্রদের জন্য লকডাউনকালে ঘরে ঘরে সরকারি উদ্যোগে খাদ্য পৌঁছে দেয়া ও তাদের চিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে।
SPB City Unit-040321-1নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার লকডাউন ঘোষণা করলেও জরুরি সেবা ও গার্মেন্টসসহ কারখানা চালু রাখার সমালোচনা করে বলেন, কারখানা চালু রাখতে হলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কারখানায় শিফটিং ডিউটি নিশ্চিত করা, শ্রমিকদেরকে ঝুঁকি ভাতা এবং করোনা আক্রান্ত হলে চিকিৎসার দায়িত্ব মালিক এবং রাষ্ট্রকে নিতে হবে।
দেশের সকল নাগরিকের বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষা ও টিকা প্রদান নিশ্চিত করতে হবে এবং পরীক্ষা ও টিকা বাণিজ্যের চক্রান্ত বন্ধ, সংক্রমণ মোকাবিলায় সরকারিভাবে ব্যাপক প্রচার, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বিনামূল্যে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ, ট্রেসিং, টেস্টিং, আইসোলেশন ও চিকিৎসার ব্যবস্থা এবং সকল হাসপাতালে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত করার দাবি করেন নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশ শেষে একটি মিছিল প্রেসক্লাব-পল্টন হয়ে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

  •  
  •  
  •  

Translate »